Bengali govt jobs   »   study material   »   অর্থ কমিশন

অর্থ কমিশন (আর্টিকেল 280-281), গঠন, কার্যাবলী এবং উদ্দেশ্য- (Polity Notes)

অর্থ কমিশন

ভারতের আর্থিক ফেডারেলিজমের ক্ষেত্রে, অর্থ কমিশন একটি মুখ্য ভূমিকা পালন করে। ভারতীয় সংবিধানের 280 এবং 281 আর্টিকেলে অন্তর্ভুক্ত, অর্থ কমিশন হল একটি সাংবিধানিক সংস্থা যা কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারের মধ্যে আর্থিক সম্পদের সুষম বণ্টনের বজায় রাখে। এটি আর্থিক সম্পর্ক বজায় রাখতে এবং সারা দেশে সুষম অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই আর্টিকেলে, অর্থ কমিশন (আর্টিকেল 280-281), গঠন, কার্যাবলী এবং উদ্দেশ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

অর্থ কমিশনের গঠন

22শে নভেম্বর 1951-তে প্রথম অর্থ কমিশন গঠিত হয়। অর্থ কমিশন একজন চেয়ারম্যান এবং রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিযুক্ত অন্য চারজন সদস্য নিয়ে গঠিত। তারা রাষ্ট্রপতি কর্তৃক তার আদেশে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য অফিসে থাকবেন। তারা পুনরায় নিয়োগের জন্য যোগ্য।

কমিশনের সদস্যদের যোগ্যতা এবং তাদের নির্বাচন করার পদ্ধতি নির্ধারণের জন্য সংবিধান সংসদকে ক্ষমতা দেয়। সে অনুযায়ী সংসদ কমিশনের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের যোগ্যতা নির্ধারণ করেছে। চেয়ারম্যান হতে হবে জনসাধারণের কাজে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একজন ব্যক্তি এবং অন্য চারজন সদস্যকে নিম্নলিখিতগুলির মধ্যে থেকে নির্বাচন করতে হবে:

  • উচ্চ আদালতের একজন বিচারপতি নিয়োগ পাওয়ার যোগ্য। একজন ব্যক্তি যিনি সরকারের অর্থ ও হিসাব সম্পর্কে বিশেষ জ্ঞান রাখেন।
  • একজন ব্যক্তি যার আর্থিক বিষয়ে এবং প্রশাসনে ব্যাপক অভিজ্ঞতা রয়েছে। একজন ব্যক্তি যার অর্থনীতিতে বিশেষ জ্ঞান রয়েছে।

অর্থ কমিশনের কার্যাবলী

  • অর্থ কমিশনের প্রাথমিক কাজ হল কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের মধ্যে কর রাজস্ব বণ্টনের সুপারিশ করা। এই বণ্টনের লক্ষ্য হল কেন্দ্রের জাতীয় স্তরের দায়িত্ব পালনের প্রয়োজনীয়তা এবং স্থানীয় উন্নয়নের জন্য রাজ্যগুলির প্রয়োজনীয়তার মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখা।
  • বণ্টন ছাড়াও, কমিশন বিভিন্ন রাজ্যের মধ্যে সম্পদ ভাগ করা উচিত তাও প্রস্তাব করে। এই বন্টন জনসংখ্যা, এলাকা, রাজস্ব ক্ষমতা এবং উন্নয়ন সূচকের মত বিষয়গুলিকে বিবেচনা করে।
  • কমিশন সেই রাজ্যগুলিকে অনুদান-সহায়তার সুপারিশ করে যেগুলির নির্দিষ্ট কার্যগুলি পূরণের জন্য অতিরিক্ত সংস্থানগুলির প্রয়োজন হতে পারে, যেমন স্থানীয় শাসন বা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত। এই অনুদানের লক্ষ্য নিশ্চিত করা যে কোন রাষ্ট্র তার বাধ্যবাধকতা পূরণ করার সময় আর্থিক অসুবিধার সম্মুখীন না হয়।
  • কমিশন ইউনিয়ন থেকে রাজ্যগুলিতে কর হস্তান্তরের প্রয়োজনীয়তা মূল্যায়ন করে। এটি কেন্দ্রীয় করের শতাংশের সুপারিশ করে যা রাজ্যগুলিকে তাদের আর্থিক স্বায়ত্তশাসন নিশ্চিত করতে এবং অযথা কেন্দ্রীকরণ রোধ করতে বরাদ্দ করা উচিত।
  • কমিশন রাজস্ব অনুমান, রাজস্ব ঘাটতি এবং পাবলিক ঋণের মতো বিষয়গুলি বিবেচনায় নিয়ে কেন্দ্র এবং রাজ্য উভয় সরকারের আর্থিক অবস্থান পর্যালোচনা করে। এই মূল্যায়ন সুপারিশ প্রণয়নে সাহায্য করে যা অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির সাথে সাথে আর্থিক শৃঙ্খলা বজায় রাখে।

অর্থ কমিশনের উদ্দেশ্য

  • অর্থ কমিশনের কেন্দ্রীয় উদ্দেশ্যগুলির মধ্যে একটি হল কেন্দ্র এবং রাজ্যগুলির মধ্যে আর্থিক ভারসাম্যহীনতা মোকাবেলা করা। সম্পদের সুষ্ঠ বণ্টন নিশ্চিত করার মাধ্যমে, কমিশন বিভিন্ন অঞ্চলে সুষম উন্নয়নের প্রচার করে।
  • কমিশনের অনুদান এবং কর ভাগাভাগির জন্য সুপারিশগুলি রাজ্য এবং স্থানীয় সরকারগুলিকে তাদের দায়িত্ব কার্যকরভাবে পালন করার ক্ষমতা দেয়৷
  • অর্থ কমিশন কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের মধ্যে আলোচনা ও সংলাপের জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম প্রদান করে সমবায় ফেডারেলিজমকে উৎসাহিত করে। এটি আর্থিক বিষয়ে ঐকমত্য গড়ে তুলতে সাহায্য করে এবং ভারতীয় ফেডারেলিজমের সহযোগিতামূলক মনোভাবকে শক্তিশালী করে।
  • আর্থিক অবস্থানের পর্যালোচনার মাধ্যমে, কেন্দ্র এবং রাজ্য উভয়ই দায়িত্বশীল আর্থিক অনুশীলনগুলি মেনে চলে তা নিশ্চিত করতে কমিশন একটি ভূমিকা পালন করে। এটি সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং টেকসই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখে।

অর্থ কমিশন (আর্টিকেল 280-281)

আর্টিকেল 280: ভারতীয় সংবিধানের আর্টিকেল 280 অর্থ কমিশন প্রতিষ্ঠা করে, একটি সাংবিধানিক সংস্থা যাকে কেন্দ্র (কেন্দ্রীয়) এবং রাজ্য সরকারের মধ্যে আর্থিক সংস্থান বণ্টনের সুপারিশ করার দায়িত্ব দেওয়া হয়। অর্থ কমিশন সম্পদের সুষম বণ্টন নিশ্চিত করে রাজস্ব ফেডারেলিজম বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, যা সমবায় ফেডারেলিজমকে উৎসাহিত করতে সাহায্য করে।

আর্টিকেল 281: ভারতীয় সংবিধানের আর্টিকেল 281 বিভিন্ন তহবিলের হেফাজত এবং ব্যবহারের জন্য নিয়মগুলি নির্দিষ্ট করে আর্থিক স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে। এটি সরকার ও সংসদের মধ্যে ক্ষমতার বিচ্ছিন্নতা বজায় রেখে দেশের আর্থিক সংস্থান পরিচালনার জন্য একটি কাঠামোগত পদ্ধতি প্রদান করে।

ভারতীয় সংবিধানের আর্টিকেল 280 এবং 281 সমবায় ফেডারেলিজম এবং দায়িত্বশীল আর্থিক শাসনের প্রতিশ্রুতিকে জোরদার করে। আর্টিকেল 280-এর অধীনে প্রতিষ্ঠিত অর্থ কমিশন কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের মধ্যে আর্থিক সম্পদের সুষম বণ্টন নিশ্চিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই বরাদ্দ শুধুমাত্র আঞ্চলিক বৈষম্যই মোকাবেলা করে না বরং সারা দেশে ন্যায়সঙ্গত প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নকে উৎসাহিত করে। আর্টিকেল 281, অন্যদিকে, একটি কন্টিনজেন্সি ফান্ড প্রদান করে জরুরী অবস্থার বিরুদ্ধে সুরক্ষা প্রদান করে যা সরকারকে অবিলম্বে অপ্রত্যাশিত ব্যয় মোকাবেলা করার ক্ষমতা দেয়।

  • বর্তমান অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান নন্দ কিশোর সিং।

অর্থ কমিশন (আর্টিকেল 280-281), গঠন, কার্যাবলী এবং উদ্দেশ্য_30.1

Adda247 ইউটিউব চ্যানেল – Adda247 You Tube Channel

Adda247 টেলিগ্রাম চ্যানেল – Adda247 Telegram Channel

Sharing is caring!

FAQs

বর্তমান অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান কে?

বর্তমান অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান নন্দ কিশোর সিং।

অর্থ কমিশন কবে গঠিত হয়?

22শে নভেম্বর 1951-তে প্রথম অর্থ কমিশন গঠিত হয়।

অর্থ কমিশনের সদস্য সংখ্যা কত?

অর্থ কমিশন একজন চেয়ারম্যান এবং রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিযুক্ত অন্য চারজন সদস্য নিয়ে গঠিত।